সর্বশেষ খবর

প্রধানমন্ত্রীর জন্মদিনে বাকলিয়া ছাত্রলীগের বর্ণাঢ্য আয়োজন

প্রেস বিজ্ঞপ্তি :
২৮ সেপ্টেম্বর মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জন্মদিন উদযাপন করেছে বাকলিয়া থানা ছাত্রলীগ কর্মসূচীতে ছিলমিলাদ দোয়া, আলোচনা সভা বর্ণাঢ্য ্যালী ১৮ নং পূর্ব বাকলিয়া ওয়ার্ড ছাত্রলীগের সভাপতি মোহাম্মদ ফারুকের সভাপতিত্বে কর্মসূচীতে প্রধান অতিথি ছিলেনসাবেক ছাত্রনেতা চট্টগ্রাম চেম্বার অব কমার্সের পরিচালক ছৈয়দ ছগির আহমেদ, বিশেষ অতিথি বাকলিয়া থানা আওয়ামীলীগের সহসভাপতি কুতুব উদ্দিন, সাংগঠনিক সম্পাদক হাজী আব্দুল মোনাফ সওদাগর, প্রধান বক্তা নগর ছাত্রলীগের সহসম্পাদক আজিজুল হক আজিজ ওয়ার্ড ছাত্রলীগের উপপ্রচার সম্পাদক শহীদুল ইসলাম সাগরের সঞ্চালনায় বক্তব্য রাখেনযুবলীগ নেতা এস এম মুজিব ইসলাম, শহিদুল ইসলাম সজীব, মোঃ আফসার, শওকত ইরফান রিয়াদ, রুবেল হোসেন ওয়ার্ড ছাত্রলীগের সহসভাপতি এস এম রিয়াজ, আনিসুল ইসলাম আজাদ, এম এম আসিফ, সাংগঠনিক সম্পাদক ইয়াছিন আলী, তথ্য গবেষনা সম্পাদক আলী আজগর আজাদ, কার্যনির্বাহী সদস্য আনোয়ার ইসলাম সুমন, ইরফানুল আবির আরো উপস্থিত ছিলেনসরকারি সিটি কলেজ ছাত্রলীগের অন্যতম সংগঠক গিয়াস উদ্দিন রনি, বাকলিয়া থানা ছাত্রলীগ নেতা রুবেল আলম, সৈয়দ তানজিল আহমেদ তাহিম প্রমুখ আলোচনা সভা শেষে বাকলিয়া এক্সেস রোড থেকে এক বর্ণাঢ্য ্যালী বের করে বাকলিয়া থানা ছাত্রলীগ

বক্তারা বলেনশেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশ এগিয়ে যাচ্ছে বিশ্ব দরকারে বাংলাদেশ আজ মাথা উঁচু করে দাঁড়িয়েছে দুর্নীতি সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে চলমান অভিযান প্রশংসনীয় আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে সাধুবাদ জানাই সাহসী ভূমিকা রাখায় ছাত্রলীগকে দেশ জাতির জন্য গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখতে সোচ্চার থাকার আহবান জানান এছাড়া, বাকলিয়া এলাকায় মাদক ব্যবসা সন্ত্রাসী কার্যকলাপে জড়িতদের কঠোর ভাবে দমনের হুশিয়ারি দেন নেতৃবৃন্দ উল্লেখ্য, ষাটের দশকে ইডেন কলেজ ছাত্রলীগের কর্মী হিসেবে শেখ হাসিনার রাজনৈতিক জীবন শুরু ১৯৬৬৬৭ সালে ছাত্রলীগ থেকে ইডেন কলেজে ভিপি নির্বাচিত হন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রী থাকাকালে ছাত্রলীগের রোকেয়া হল শাখার সাধারণ সম্পাদক ছিলেন মুক্তিযুদ্ধের পুরো সময়ই শেখ হাসিনা মা, বোন শেখ রেহানা ছোট ভাই শেখ রাসেলসহ ঢাকায় বন্দি ছিলেন ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট সেনাবাহিনীর একদল সদস্য স্বপরিবারে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবকে হত্যা করা হয় সে সময় দেশে না থাকায় ভাগ্যক্রমে শেখ হাসিনা বোন শেখ রেহানা বেঁচে যান এরপর দীর্ঘ সময় দেশে ফিরতে পারেননি শেখ হাসিনা ১৯৮১ সালের ফেব্রুয়ারিতে হাসিনার অনুপস্থিতিতে আওয়ামীলীগের সম্মেলনে তাকে দলীয় প্রধান নির্বাচিত করা হয় ওই বছরের ১৭ মে দেশে ফিরে আওয়ামী লীগের সভানেত্রীর দায়িত্ব নেন তিনি শেখ হাসিনার নেতৃত্বে আওয়ামী লীগ এবং অন্য রাজনৈতিক জোট দলগুলো ১৯৯০ সালে স্বৈরাচার বিরোধী তীব্র গণআন্দোলনের মাধ্যমে গণতন্ত্র পুনরুদ্ধারের সংগ্রামে জয়ী হয় ১৯৯৬ সালে তার নেতৃত্বেই তৎকালীন বিএনপি সরকারের পতন এবং দলীয় প্রভাবমুক্ত সুষ্ঠু নির্বাচন অনুষ্ঠানের জন্য তত্ত্বাবধায়ক সরকার প্রতিষ্ঠার আন্দোলনে বিজয় অর্জন করে আওয়ামী লীগ ২০০৮ সাল থেকে টানা তিন মেয়াদে আওয়ামীলীগ রাস্ট্র পরিচালনা করছেন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

২১ জুলাই থেকে আওয়ামী লীগের সদস্য সংগ্রহ অভিযান শুরু

নিউজ ডেস্ক : আগামী ২১ জুলাই থেকে শুরু হচ্ছে আওয়ামী লীগের সদস্য ...